শিরোনাম:

ধেয়ে আসছে গভীর নিম্নচাপ , বন্যার আশ’ঙ্কা দক্ষিনবঙ্গের এই জেলাগুলিতে..

একটা নিম্নচাপের বৃষ্টি র জেরেই থইথই অবস্থা বাংলার উপকূল ভাগ, বাকি রয়েছে আরও। এর মধ্যেই টানা ২-৩ দিনের ভারী বৃষ্টিতে দক্ষিনবঙ্গের উপকূলীয় জেলার অবস্থা শোচনীয়। দীঘা, শঙ্করপুর, মন্দারমনিতে প্রবল জলোচ্ছ্বাস। তার জেরে হোটেল, বাজার এলাকা প্লাবিত। উপচে পড়া নদীর জলে বিপ’র্যস্ত দক্ষিন ২৪ পরগণা ও পূর্ব মেদিনীপুরের বিভিন্ন এলাকা। কোথাও জল জমে রয়েছে তো কোথাও এলাকা রয়েছে বিদ্যুৎহীন।

আবহাওয়া অফিস সূত্র জানা গিয়েছে, রবিবার রাতে একটি নিম্নচাপ ঘনীভূত হচ্ছে বঙ্গোপসাগরে। তার জেরেই আগামী ২৬শে আগস্ট বুধবার পর্যন্ত ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট হওয়া নিম্নচাপ এবং মৌসুমী অক্ষরেখা গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের ওপর অবস্থান করছে, আর তার জেরেই ফের বৃষ্টিতে ভাসতে পারে গোটা রাজ্য, বিশেষত দক্ষিনবঙ্গের জেলাগুলি। সোম, মঙ্গল ও বুধবার দক্ষিণবঙ্গে অতি ভারী বৃষ্টির কমলা সর্ত’কতা জারি করেছে আবহাওয়া দপ্তর।

সোমবার ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সর্তকতা দক্ষিণ ২৪ পরগনা ও পূর্ব মেদিনীপুরে। ভারী বৃষ্টি হতে পারে উত্তর ২৪ পরগণা, পশ্চিম মেদিনীপুর, কলকাতা, হাওড়া, হুগলি, নদিয়া এবং পূর্ব বর্ধমানে। মঙ্গল ও বুধবারে বৃষ্টির পরিমাণ আরও বাড়বে। বৃহস্পতিবারেও বিক্ষিপ্ত ভারী বৃষ্টিপাত হবে। পশ্চিমবঙ্গের সব জেলাতেই ভারী বৃষ্টির সর্তকতা।

গভীর এই নিম্নচাপের কারনে নিচু এলাকা বন্যা হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। কলকাতা-সহ শহরতলির বেশ কিছু এলাকা জলমগ্ন হতে পারে। ২০০ মিলিমিটার পর্যন্ত অতি ভারী বৃষ্টির সর্তকতা দক্ষিণবঙ্গে। উপকূলের জেলাগুলিতে বইবে ঝোড়ো হাওয়াও। সমুদ্র সৈকত দিঘা, মন্দারমণি ও সাগরদ্বীপে লাল সর্ত’কতা জারি করা হয়েছে। বুধবার পর্যন্ত মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধা’জ্ঞা জারি করা হয়েছে।

এদিকে টানা বৃষ্টির জেরে গঙ্গার জল বেড়ে বিপ’ত্তি, ঘরবন্দি নদিয়ার কল্যাণী ব্লকের গ্রামের বাসিন্দারা, আত’ঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন প্রায় ১০০টি পরিবার। উত্তর ২৪ পরগণায় নদীর জল ঢুকে প্লাবিত হাসনাবাদের বিস্তীর্ণ এলাকা। দক্ষিন ২৪ পরগনাতেও একই অবস্থা, কাকদ্বীপ নামখানায় তলিয়ে গেছে বাড়ি। ডায়মন্ডহারবারে নদীর বাঁধ ভেঙে বিস্তীর্ণ এলাকা জলে থইথই।

Check Also

চিন্তার অবসান! আবিষ্কৃত ক’রোনা প্রতি’ষেধক – ১০০ শতাংশ কাজ করছে ঘোষণা পতঞ্জলির রামদেবের..

করো’নার কালো ছায়া বিশ্বের মাথা থেকে দূর করতে আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছে বিশ্বের সমস্ত দেশ। এখনও …